আজ- ২৭শে মে, ২০১৮ ইং, ১৩ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ রবিবার  সকাল ১০:৫১

অন্য মামলায় এমপি রানাকে গ্রেপ্তারের আদেশ :: ফারুক হত্যা মামলার সাক্ষ্য গ্রহন

 

দৃষ্টি নিউজ:


দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় টাঙ্গাইল-৩ (ঘাটাইল) আসনের সংসদ সদস্য আমানুর রহমান খান রানাকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন মঞ্জুর করেছেন আদালত। জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের আবেদনের প্রেক্ষিতে বুধবার(৯ মে) সকালে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সদর আমলী আদালতের বিচারক আব্দুল্লাহ আল মাসুম এই আবেদন মঞ্জুর করেন।
আদালত সূত্রে জানা যায়, যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুন হত্যা মামলার গত বৃহস্পতিবার তদন্তকারী কর্মকর্তা জেলা গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের ওসি অশোক কুমার সিংহ টাঙ্গাইল-৩ আসনের এমপি রানাকে গ্রেপ্তার দেখানোর আবেদন করেন। পরে আদালতের বিচারক ৯ মে আবেদনের শুনানির জন্য ধার্য করেন। বুধবার শুনানী শেষে আদালতের বিচারক এমপি রানাকে গ্রেপ্তার দেখানোর নির্দেশ দেন। অপরদিকে, ঘাটাইল জিবিজি কলেজ ছাত্র সংসদের সহ-সভাপতি (ভিপি) ছাত্রলীগ নেতা আবু সাঈদ রুবেলকে হত্যা চেষ্টার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের উপপরিদর্শক (এসআই) শামছুল ইসলাম ঘাটাইল আমলী আদালতে এমপি রানাকে গ্রেপ্তার দেখানোর অপর একটি আবেদন করেন। পরে আদালতের বিচারক আগামি ১০ মে আবেদনের শুনানির দিন ধার্য করেন ।
জেলা গোয়ান্দো (ডিবি) পুলিশের ওসি অশোক কুমার সিংহ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, দুই যুবলীগ নেতা হত্যা মামলায় এমপি রানাকে আদালতে পাঁচ দিনের রিমান্ডের আবেদন করা হবে।
উল্লেখ্য, টাঙ্গাইল সদর উপজেলার বাঘিল ইউনিয়ন যুবলীগের নেতা শামীম ও মামুন ২০১২ সালের ১৬ জুলাই তাদের বাড়ি থেকে মোটরসাইকেলযোগে টাঙ্গাইল শহরে এসে নিখোঁজ হন। ঘটনার পরদিন শামীমের মা আছিয়া খাতুন এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেন।
এক বছর পর ২০১৩ সালের ৯ জুলাই নিখোঁজ মামুনের বাবা টাঙ্গাইল আদালতে হত্যা মামলা দায়ের করেন। পরে তদন্ত করে পুলিশ ওই বছর ২১ সেপ্টেম্বর মামলাটি তালিকাভুক্ত করে।
এই মামলায় গ্রেফতার হওয়া শহরের বিশ্বাস বেতকা এলাকার খন্দকার জাহিদ গত বছর ১১ মার্চ, শাহাদত হোসেন ১৬ মার্চ এবং হিরন মিয়া ২৭ এপ্রিল আদালতে এই ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে তারা উল্লেখ করেন এমপি রানার দিকনির্দেশনায় যুবলীগ নেতা শামীম ও মামুনকে হত্যা করে মরদেহ নদীতে ভাসিয়ে দেয়া হয়।
মুক্তিযোদ্ধা ফারুক হত্যা মামলা পঞ্চমবারের সাক্ষ্যগ্রহণ:
টাঙ্গাইলের আওয়ামীলীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমদ হত্যা মামলার পঞ্চমবারের সাক্ষ্যগ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। বুধবার(৯ মে) বেলা সাড়ে ১১টার দিকে এমপি রানাকে আদালতে উপস্থিত করা হয়। পরে সাক্ষ্যগ্রহণ ও বাদির জেরা শুরু হয়। দুপুর দেড়টায় এ সাক্ষ্যগ্রহণ শেষ হয়। আগামি ২৭জুন এই মামলার পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেন আদালতের বিচারক।
টাঙ্গাইল আদালতের পরিদর্শক আনোয়ারুল ইসলাম জানান, আওয়ামীলীগ নেতা ও মুক্তিযোদ্ধা ফারুক আহমদ হত্যা মামলার প্রধান আসামি এমপি আমানুর রহমান খান রানার উপস্থিতিতে বুধবার টাঙ্গাইলের প্রথম অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালেরত বিচারক আবুল মনসুর মিয়া এজলাসে মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ ও বাদির জেরা শুরু হয়। আদালতে মামলার বাদি ও নিহতের স্ত্রী নাহার আহমদের জেরা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়া বাকি আরও দুই সাক্ষী নিহতের ছেলে আহমদ মজিদ সুমন ও মেয়ে ফারজানা আহমদ মিথুনের হাজিরা আদালতে দাখিল করা হয়। পরে আগামি ২৭জুন এই মামলার পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের দিন ধার্য করেন।
কারাগার থেকে এ মামলার প্রধান আসামী এমপি রানাসহ টাঙ্গাইল কারাগারে থাকা আরো তিন আসামি মোহাম্মদ আলী, আনিছুর রহমান রাজা ও সমিরকে আদালতে হাজির করা হয়। এছাড়া জামিনে থাকা আসামি নাসির উদ্দিন নুরু, মাসুদুর রহমান মাসুদ ও ফরিদ আহম্মেদ আদালতে হাজিরা দেন।
গত ১১ ফেব্রুয়ারি থেকে চাঞ্চল্যকর এ মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ শুরু হয়েছে।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 

0 Comments

You can be the first one to leave a comment.

 
 

Leave a Comment

 




 
 

 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno