আজ- ১০ই আগস্ট, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ২৬শে শ্রাবণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ সোমবার  রাত ১০:১৫

বিনম্র শ্রদ্ধা আর চোখের জলে শাজাহান সিরাজকে কালিহাতীবাসীর বিদায়

 
এলেঙ্গা সরকারি শামছুল হক কলেজ মাঠে জানাজা(বামে), মাঝে প্রয়াত শাজাহান সিরাজ, কালিহাতী শাজাহান সিরাজ কলেজ মাঠে জানাজা নামাজ(ডানে)

বুলবুল মল্লিক:

বিনম্র শ্রদ্ধা আর চোখের জলে মহান স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠক ও সাবেক মন্ত্রী শাজাহান সিরাজকে শেষ বিদায় জানিয়েছে টাঙ্গাইলের কালিহাতীবাসী। বুধবার(১৫ জুলাই) প্রিয় নেতাকে এক নজর দেখার জন্যে দলমত নির্বিশেষে সর্বস্তরের মানুষের ঢল নামে কালিহাতীর এলেঙ্গা সরকারি শামছুল হক কলেজ মাঠে।

বুধবার সকাল সাড়ে ১১ টায় অ্যাম্বুলেন্সযোগে শাজাহান সিরাজের মরদেহ ঢাকা থেকে এলেঙ্গায় পৌঁছলে সেখানে এক হৃদয় বিদারক পরিবেশের সৃষ্টি হয়। তার দীর্ঘদিনের শ’ শ’ রাজনৈতিক সহকর্মী, ভক্ত-অনুসারীরা নেতার মরদেহ দেখার অপেক্ষার অবসান ঘটে।

প্রিয় নেতার মরদেহ কলেজ মাঠে পৌঁছার সাথে সাথে স্থানীয় নেতারা প্রকাশ্যে কান্নায় ভেঙে পড়েন। জানাজা নামাজের কাতার কলেজ মাঠ ছাপিয়ে পূর্ব পাশের পুরাতন ভূঞাপুর রোড পর্যন্ত কানায় কানায় পূর্ণ হয়ে যায়।

বুধবার দুপুর ১২ টার দিকে টাঙ্গাইলের এলেঙ্গা সরকারি শামছুল হক কলেজ মাঠে প্রথম জানাজা ও দুপুর আড়াইটায় কালিহাতী সদরের শাজাহান সিরাজ কলেজ মাঠে দ্বিতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক শাজাহান সিরাজকে কালিহাতী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শামীম আরা নিপার উপস্থিতিতে গার্ড অব অনার প্রদান করা হয়। প্রশাসনের উর্ধতন কর্মকর্তা ও বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীসহ সাধারণ মানুষ জানাজা নামাজে অংশগ্রহণ করেন।


দুই স্থানেই প্রশাসন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান, পেশাজীবী, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সংগঠনের পক্ষ থেকে প্রিয় নেতার মরদেহের কফিনে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এ সময় মরদেহের কফিন ফুলে ফুলে ছেয়ে যায়।

জানাজা নামাজের আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে নেতৃবৃন্দ মহান মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অনন্য অবদানের কথা স্মরণ করেন। পরিবারের পক্ষ থেকে সবার উদ্দেশে কথা বলেন, শাজাহান সিরাজের মেয়ে ব্যারিস্টার সারওয়াত সিরাজ শুক্লা।

জানাজা নামাজে টাঙ্গাইল-৪(কালিহাতী) আসনের সংসদ সদস্য হাছান ইমাম খান সোহেল হাজারি, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আনছার আলী বিকম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোজহারুল ইসলাম তালুকদার, বিএনপির কেন্দ্রীয় সদস্য লুৎফর রহমান

মতিন, টাঙ্গাইল জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ফরহাদ ইকবাল, টাঙ্গাইল জেলা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম রফিক, কালিহাতী উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক শুকুর মাহমুদ, সিনিয়র যুগ্ম-আহ্বায়ক ও

কালিহাতী পৌরসভার মেয়র আলী আকবর জব্বার, এলেঙ্গা পৌরসভার মেয়র নূর এ আলম সিদ্দিকীসহ জেলা ও উপজেলা বিএনপি, আওয়ামী লীগ সহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও তাদের সহযোগী, অঙ্গ ও ভ্রাতৃপ্রতীম সংগঠনের নেতৃবৃন্দ অংশ গ্রহন করেন।

বিএনপি নেতা শাজাহান সিরাজের জানাজা নামাজকে কেন্দ্র করে এলেঙ্গা ও কালিহাতী উপজেলা সদরে পুলিশ কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করে। শাজাহান সিরাজের স্ত্রী রাবেয়া সিরাজ বলেন, মরদেহ ঢাকার বনানী কবরস্থানে দাফন করা হবে।

প্রসঙ্গত, শাজাহান সিরাজ মঙ্গলবার(১৪ জুলাই) বিকাল সাড়ে ৩ টায় রাজধানীর এভার কেয়ার বেসরকারি হাসপাতালে চিকৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

বর্ণাঢ্য রাজনীতিক জীবনের অধিকারী শাজাহান সিরাজ ১৯৪৩ সালের ১ মার্চ জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম আব্দুল গণি মিয়া এবং মাতার নাম রাহিমা খাতুন। বাড়ি টাঙ্গাইলের কালিহাতী পৌরসভার বেতডোবা এলাকায়। তাদের পৈত্রিক বাড়ি সখীপুর উপজেলার গোহাইলবাড়ি গ্রামে।

শাজাহান সিরাজ স্বাধীনতা পূর্ববর্তী রাজনীতির ‘চার খলিফা’র একজন। বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা তৈরির পরিকল্পনাকারীদের মধ্যে তিনি অন্যতম। ৩ মার্চ ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর উপস্থিতিতে মহান স্বাধীনতার ইশতেহার পাঠ করেন তৎকালীন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শাজাহান সিরাজ।

তিনি একাধারে একজন তুখোঁড় ছাত্রনেতা হিসেবে ষাটের দশকে বঙ্গের আলীগড় খ্যাত টাঙ্গাইলের করটিয়া সরকারি সা’দত কলেজের ছাত্র সংসদের দুইবার ভিপি নির্বাচিত হন।

স্বাধীনতার পর শাজাহান সিরাজ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের রাজনীতির সাথে যুক্ত হন। পরবর্তীতে তিনি জাসদ থেকে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপিতে যোগদান করে ভাইস চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন।

দক্ষ ও জনপ্রিয় রাজনীতিবিদ শাজাহান সিরাজ জাসদ ও বিএনপি’র প্রার্থী হয়ে ১৯৭৯, ১৯৮৮, ১৯৯১, ১৯৯৬(বিতর্কিত ১৫ ফেব্রুয়ারির নির্বাচন) ও ২০০১ সালে পাঁচ বার টাঙ্গাইল-৪(কালিহাতী) আসন থেকে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

তিনি বিএনপি সরকারের নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী, বন ও পরিবেশ, বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

একজন শিক্ষানুরাগী হিসেবে তিনি কালিহাতি উপজেলা সদরে কালিহাতি শাহজাহান সিরাজ কলেজসহ একাধিক স্কুল, মাদরাসা গড়ে তুলেছেন।

মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী রাবেয়া সিরাজ, এক ছেলে রাজিব সিরাজ শুভ এবং এক মেয়ে ব্যারিষ্টার সারওয়াত সিরাজ শুক্লাসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 

0 Comments

You can be the first one to leave a comment.

 
 

Leave a Comment

 




 
 

 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno