আজ- ২৩শে মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ সোমবার  রাত ৪:১২

এক ঈদগাহ মাঠে ১১ বছর ধরে ১৪৪ ধারা জারি

 

দৃষ্টি নিউজ:

ঈদগাহ মাঠের বয়স প্রায় দুইশ’ বছর। মাঠের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে বিরোধ ঘাটাইলের ভোজদত্ত ও কালিহাতীর বীরবাসিন্দা গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে। এ বিরোধ নিয়ে খুনও হন এক ব্যক্তি। ১০ বছর শেষে আসন্ন ঈদুল ফিতরের নামাজও ওই ঈদগাহ মাঠে অনুষ্ঠিত হচ্ছেনা। এ বছরও প্রশাসন ১৪৪ ধারা জারি করে রেখেছে ওই মাঠে।

রোববার (১ মে) টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবুল হাশেম এ সংক্রান্ত আদেশ জারি করেন। মাঠটির অবস্থান টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলার দেওপাড়া ইউনিয়নের ভোজদত্ত গ্রামে।


জানা যায়, ভোজদত্ত ঈদগাহ মাঠের আধিপত্য নিয়ে ঘাটাইল উপজেলার ভোজদত্তসহ আশেপাশের পাঁচটি গ্রাম ও পাশের কালিহাতী উপজেলার বীরবাসিন্দা গ্রামের বাসিন্দাদের মধ্যে ২০১২ সালে তুচ্ছ ঘটনায় বিরোধের সৃষ্টি হয় । বিরোধ নিরসনে ২০১২ সালের ২১ নভেম্বর দুই উপজেলার তৎকালীন ইউএনওদের উপস্থিতিতে এক সালিশী বৈঠক হয়।

বৈঠক শেষে উভয় পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে বীরবাসিন্দা গ্রামের আ. গফুর নামে এক ব্যক্তি আহত হন। এ অবস্থায় যে কোন সংঘর্ষ ও অপ্রীতিকর ঘটনার আশংকায় ওই বছরের ২৬ নভেম্বর ঈদুল আজহার দিন টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসকের নির্দেশক্রমে স্থানীয় প্রশাসন ভোজদত্ত ঈদগাহ মাঠের আশে পাশের এলাকায় ১৪৪ ধারা জারি করে। ঈদের সপ্তাহখানেক পর অর্থাৎ ১ ডিসেম্বর আহত গফুর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।


পরে এ বিষয়ে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে আ. গফুরের ছেলে মোস্তফা কামাল। মামলায় ১৭ জনকে আসামি করা হয়। পরবর্তীতে পুলিশ আদালতে প্রতিবেদন পাঠান ১৩ জনের নামে। মামলাটি বর্তমানে বিচারাধীন রয়েছে। ওই হত্যাকান্ডের পর দুই গ্রামের মানুষের মধ্যে বিরোধ আরও বেড়ে যায় এবং উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। সেই বিরোধ এখনো বিদ্যমান রয়েছে।


এ ঘটনার পর থেকে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতির আশংকায় গত ১১ বছর ধরে দুই ঈদে ভোজদত্ত ঈদগাহ মাঠে জেলা প্রশাসকের নির্দেশক্রমে ১৪৪ ধারা জারি করে আসছে স্থানীয় উপজেলা প্রশাসন। এবারও একই নির্দেশনা বজায় রাখার নির্দেশনা চেয়ে চিঠি লিখেছিল উপজেলা প্রশাসন।


স্থানীয় মসজিদের ইমাম মাওলানা শাহআলম জানান, ২০১২ সালের ঘটনার পরের বছর তিনি ওই ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজে ইমামতি করেছেন।

তখন তিনি মনে করেছিলেন যে প্রতিবছরই শান্তিপূর্ণভাবে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে। কিন্তু পরবর্তীতে দীর্ঘ ১১ বছর ধরেই ওই মাঠে ঈদ এলেই ১৪৪ ধারা জারি করা হয়। তবে তিনিও চান সকলে মিলেমিশে ওই ঈদগাহ মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করুক।


এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার(ইউএনও) মুনিয়া চৌধুরী বলেন, আসন্ন ঈদুল ফিতরের নামাজেও ওই মাঠে ১৪৪ ধারা কার্যকর থাকবে।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno