আজ- ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার  সকাল ৮:৩৮

গোপালপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় হত্যা মামলায় গ্রেপ্তার নেই ॥ ভাংচুরে ৬ জনের জামিন

 

দৃষ্টি নিউজ:

টাঙ্গাইলের গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ও বিদ্রোহী মেয়র প্রার্থীর সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে খলিল মিয়া নিহত হওয়ার মামলায় বুধবার(১০ ফেব্রুয়ারি) বিকাল পর্যন্ত কেউ আটক বা গ্রেপ্তার হয়নি।

তবে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর একটি নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুরের মামলায় গ্রেপ্তারকৃত ৮ সমর্থকের মধ্যে ৬ জনের জামিন মঞ্জুর করে অপর দুইজনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

বুধবার দুপুরে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শামসুল আলম ওই আদেশ দেন।

আদালত সূত্র জানায়, গত সোমবার(৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় গোপালপুর বাজারে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুরের ঘটনায় দায়েরকৃত মামলায় গ্রেপ্তার ৮জনকে আদালতে পাঠানো হয়।

আসামি পক্ষের জামিন আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে বিজ্ঞ আদালত আসামি হুমায়ুন কবির ও শেখ ফরিদের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে তাদেরকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। অপর ৬ আসামি রাজু আহমেদ, আল আমিন, ফরিদ, সাহেব আলী, সেলিম মিয়া ও মঞ্জুরুল হকের জামিন মঞ্জুর করেন।

তারা সবাই বিদ্রোহী প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার কেএম গিয়াস উদ্দিনের নারকেল গাছ প্রতীকের সমর্থক। সোমবার সন্ধ্যায় গিয়াস উদ্দিনের বাসা থেকে পুলিশ তাদেরকে গ্রেপ্তার করে।

গোপালপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আমীর খসরু জানান, অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে দায়েরকৃত খলিল হত্যা মামলায় পুলিশ জড়িত ব্যক্তিদের চিহ্নিত ও গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে। আওয়ামীলীগ প্রার্থীর কার্যালয় ভাংচুরের ঘটনায় ৮ জনকে গ্রেপ্তার করে আদালতে পাঠানো হয়।

প্রকাশ, সোমবার সন্ধ্যায় গোপালপুর উপজেলা সদরে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রকিবুল হক ছানা ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার কেএম গিয়াস উদ্দিনের সমর্থকদের মধ্যে পাল্টাপাল্টি হামলা হয়।

আওয়ামী লীগ প্রার্থীর সমর্থকরা গিয়াস উদ্দিনের গোপালপুর বাজার এলাকার বাসা ঘেরাও করে রাখেন। খবর পেয়ে গিয়াস উদ্দিনের নিজ এলাকা ডুবাইল থেকে তার সমর্থকরা উপজেলা সদরের দিকে মিছিল নিয়ে রওনা হন।

ওই মিছিলের ওপর হামলা হলে খলিল মিয়া নামে এক যুবক নিহত হন। এ ঘটনায় তার বাবা নাজিমুদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামি করে থানায় মামলা করেন। এদিকে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী অফিস ভাংচুরের ঘটনায় আওয়ামী লীগের কর্মী রফিকুল ইসলাম হীরা বাদী হয়ে অপর একটি মামলা করেন।

উল্লেখ্য, আগামি ১৪ ফেব্রুয়ারি চতুর্থ ধাপে গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান মেয়র রকিবুল হক ছানা, বিদ্রোহী প্রার্থী হয়েছেন উপজেলা

আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার গিয়াস উদ্দিন, বিএনপি প্রার্থী খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম রুবেল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. শাহজাহান প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno