আজ- ২৪শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৯ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ বুধবার  রাত ১০:৪৫

স্বামীর পৌনে দুই কোটি টাকা ফেরত পেল স্ত্রী

 

দৃষ্টি নিউজ:

টাঙ্গাইলে টাকা উত্তোলনের দাবিতে সোমবার দুপুরে প্রেসক্লাবের বঙ্গবন্ধু মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করেন মৃত লুৎফরের স্ত্রী মোছা. সুলতানা। এর পরপরই টাকা ফেরত দেয় ইসলামী ব্যাংক টাঙ্গাইল শাখা।


জানা যায়, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেডের টাঙ্গাইল শাখায় ১০ বছর আগে এক কোটি টাকা সঞ্চয় রেখেছিলেন লুৎফর রহমান নামে এক ব্যক্তি। টাকা রাখার তিন বছর পর লুৎফর রহমান মারা যান। ওই হিসাব নম্বরে চলতি বছরের গত জুন পর্যন্ত লাভসহ এক কোটি ৭৩ লাখ ৭৭ হাজার টাকা জমা হয়। পরিবারের পক্ষ থেকে এই টাকা উত্তোলনের জন্য বার বার ব্যাংকে যাওয়া হলেও উত্তোলন করতে পারেননি।


লুৎফরের পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড টাঙ্গাইল শাখার ম্যানেজার এই টাকা নিয়ে নানা তালবাহনা শুরু করেন। ম্যানেজারকে ব্যাংকের আইন সম্পর্কে অবগত করলেও টাকা উত্তোলনের ক্ষেত্রে তিনি নানা অজুহাত দেখাতে থাকেন। বাধ্য হয়ে রোববার টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করেন ওই পরিবার।


সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন শহরের সাবালিয়া এলাকার বাসিন্দা নিহত লুৎফর রহমানের ছেলে ফাহাদ রহমান।


সংবাদ সম্মেলনে মোছা. সুলতানা জানান, ২০১৩ সালের ১৯ আগস্ট তার স্বামী লুৎফর রহমান ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড টাঙ্গাইল শাখায় এক কোটি টাকার সঞ্চয় রাখেন। সঞ্চয়ে মোছা. সুলতানাকে নমিনী করেন লুৎফর রহমান। ২০১৬ সালের ১১ জুন লুৎফর রহমান মৃত্যুবরণ করেন। লুৎফর রহমানের মৃত্যুর পর সুলতানা নমিনী হিসেবে টাকা উত্তোলন করতে ব্যাংকে যান।

ব্যাংক থেকে সুলতানাকে জানানো হয়- টাকার জন্য লুৎফর রহমানের বাবা মোসলেম উদ্দিন সাকসেশন সার্টিফিকেট পাওয়ার জন্য আদালতে মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নিষ্পতি না হওয়া পর্যন্ত সুলতানাকে টাকা দেওয়া যাবেনা। মামলাটি আদালত ‘ব্যাংক কোম্পানী আইনের ১০৩ ধারানুসারে নমিনী হিসাবের সমস্ত টাকা উত্তোলনের একমাত্র অধিকারী সুলতানা মর্মে প্রতীয়মান হয়। এ ক্ষেত্রে প্রার্থীপক্ষ আইনগত প্রতিকার প্রাপ্তি অধিকারী নন মর্মে আদালতের নিকট প্রতীয়মান হয়।’

পরে ফাউন্ডিং দিয়ে গত ৩১ জুলাই মামলাটি খারিজ করেন। ৬ আগস্ট পুনরায় টাকা উত্তোলনের জন্যে ব্যাংকে গেলে শাখা ব্যবস্থাপক বিভিন্ন আইন দেখিয়ে সুলতানাকে টাকা দেননি।


সুলতানা বেগম আরও জানান, ব্যাংকের শাখা ব্যবস্থাপক তাদের নানাভাবে হয়রানি করছে। শাখা ব্যবস্থাপক টাকা না দিয়ে তিনি অনিয়ম করছেন। এতে তারা মানসিক ও আর্থিক ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন। সব মিলিয়ে তারা সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছেন। নমিনী হিসেবে লুৎফর রহমানের টাকা ফেরত দেওয়ার জোর দাবি জানান মোছা. সুলতানা।
মোছা. সুলতানার ছেলে ফাহাদ রহমান বলেন, সংবাদ সম্মেলনের পর ব্যাংক থেকে ডেকে নিয়ে টাকাগুলো আমাদের অন্য অ্যাকাউণ্টে ট্রান্সফার করে দিয়েছে।


সংবাদ সম্মেলনের পর ইসলামী ব্যাংক বাংলাদেশ লিমিটেড টাঙ্গাইল শাখা প্রধান ভাইস প্রিন্সিপাল মোহাম্মদ মাছউদ হাকিম খান বলেন, এ বিষয়ে আদালতে মামলা চলমান রয়েছে। মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত কোন প্রকার মন্তব্য করা যাবে না। তবে বিকালে টাকা ফেরতের বিষয়টি তিনি স্বীকার করেছেন।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno