আজ- ৩০শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার  রাত ৯:৫৫

কালিহাতীতে ১৪৪ ধারা অমান্য করায় দুই গ্রুপে সংঘর্ষের আশঙ্কা

 

দৃষ্টি নিউজ:

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়নের কুর্শাবেনু গ্রামে মহামান্য হাইকোর্টের আদেশ ও ফৌজদারী কার্যবিধির ১৪৪ ধারায় আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে ব্যক্তি মালিকানাধীন ফসলি জমির মাটি কেটে বিক্রির কারণে ওই এলাকায় দুই গ্রুপে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে হতাহতের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।


জানাগেছে, গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়নের কুর্শবেনু গ্রামের মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে আবু বকর সিদ্দিক(৭২) তার ৫৩ নং বিআরএস খতিয়ানের ৭৯, ৮৭, ২৬২ও ২৬৫ নম্বর দাগের ১১৯ শতাংশ আবাদি জমির ফসল নষ্ট করে মাটি কেটে বিক্রি করার অভিযোগে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলা(নং-১০৮/২০২৩ইং) দায়ের করেন।

একই অভিযোগে একই গ্রামের মৃত ছামান আলীর ছেলে আব্দুল বারী(৬২) তার ৯০ নং বিআরএস খতিয়ানের ২৫ নম্বর দাগের ২৪ শতাংশ আবাদি জমির বিষয়ে একই আদালতে মামলা(নং-১০৯/২০২৩ইং) দায়ের করেন। দুইটি মামলায়ই একই ইউনিয়নের সরাতৈল গ্রামের তোতা মেম্বারের ছেলে জহুরুল ইসলাম(৪৫), তার ভাই আজিজুল(২৮), খলিলের ছেলে চান মিয়া(৩৫), আব্দুল জলিলের ছেলে ইউসুফ(৩৫), মোকাদ্দেছ আলীর ছেলে লতিফ(৪২), মৃত মুনছের আলীর ছেলে মজিবুর রহমান এলাজ(৬০) ও বেল্লালকে(৩৫) আসামি করা হয়েছে।


আদালত শুনানী শেষে উল্লেখিত জমির উপর উভয় পক্ষের মধ্যে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রাখার লক্ষে ফৌজদারী কার্যবিধির ১৪৪ ধারায় আদেশ দেন। ওই আদেশ কালিহাতী থানা পুলিশের এএসআই মো. তৈয়ব আলী উভয় পক্ষের উপস্থিতিতে জারি করে আসেন। এরআগে কুর্শাবেনু গ্রামের মো. কামরুজ্জামান(কামরুল) মহামান্য হাইকোর্টে রিটপিটিশন(নং-১০২০৬/২০২২ইং) দায়ের করেন।

ওই রিটের আলোকে বিচারপতি খিজির আহমেদ চৌধুরী ও সর্দার মো. রাশেদ জাহাঙ্গীর সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ কুর্শাবেনু ও কদিমহামজানী মৌজায় মাটি-বালু উত্তোলন ও সরবরাহ সম্পূর্ণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেন।


মহামান্য হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ ও ফৌজদারী কার্যবিধির ১৪৪ ধারায় আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে উল্লেখিত ব্যক্তিরা বুধবার(৩ মে) দুপুর থেকে ফসলি জমির মাটি কেটে ড্রামট্রাকে ভরে বিভিন্ন স্থানে বিক্রি করছে।

তারা মহামান্য হাইকোর্টের দেওয়া আদেশ সম্বলিত সাইনবোর্ড বেকু দিয়ে ভেঙে গুড়িয়ে দিয়েছে। এ ঘটনায় কুর্শাবেনু গ্রামের মানুষ বিক্ষুব্দ হয়ে ওঠেছে। তারা দুই গ্রুপে বিভক্ত হয়ে পক্ষাবলম্বন করছে। এমতাবস্থায় ক্ষমতাসীন দলের স্থানীয় কতিপয় নেতা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারে দুই পক্ষের উত্তেজনাকে উসকে দিচ্ছেন। বর্তমানে এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। যে কোন সময় রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে হতাহতের আশঙ্কা সৃষ্টি হয়েছে।


কালিহাতী থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমান জানান, কুর্শবেনু এলাকায় আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখতে তিনি আদালতের আদেশ যথাযথভাবে জারি করেছেন। আদালতের নির্দেশনার বাইরে যাওয়ার তার কোন সুযোগ নেই।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno