আজ- ২৯শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ বৃহস্পতিবার  সকাল ১১:৪৯

কাল শারদীয় দুর্গাপূজা শুরু ॥ রাত পোহালেই বোধন

 

দৃষ্টি নিউজ:

dristy-pic-8ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা ও ধর্মীয় ভাবগম্ভীর পরিবেশের মধ্যদিয়ে শুক্রবার(৭ অক্টোবর) থেকে শুরু হচ্ছে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ‘শারদীয় দুর্গাপূজা’। ইতোমধ্যে টাঙ্গাইল সহ সারাদেশের সকল পূজামণ্ডপের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাত পোহানোর পর শুক্রবার হলেই দুর্গতিনাশিনী দশভুজা দেবীর বোধনের মধ্যদিয়ে দুর্গাপূজার অনুষ্ঠানিকতা শুরু হবে। ঢাকের ঢোল, কাঁসর ঘণ্টা, শাঁখের ধ্বনিতে মুখর হয়ে উঠবে সারা দেশের পূজামন্ডপ। বছর ঘুরে দেবীর আগমনবার্তায় উৎসবের আমেজ এখন হিন্দু সম্প্রদায়ের ঘরে ঘরে। বাঙালিরা যেহেতু ‘ধর্ম যা যার, উৎসব সবার’ জ্ঞান করে উৎসব উদযাপন করে থাকে, আই পূজার গুরুগম্ভীর আওয়াজ অন্য ধর্মাবলম্বীদের হৃদয়কেও করছে পুলকিত।
গত ৩০ সেপ্টেম্বর(শুক্রবার) মহালয়ার মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে দেবীপক্ষ। আর কাল মহাষষ্ঠী পূজা দিয়ে শুরু হবে পাঁচ দিনের শারদীয় দুর্গোৎসব। বিশুদ্ধ পঞ্জিকামতে, জগতের মঙ্গল কামনায় দেবী দুর্গা এবার ঘোটকে (ঘোড়া) চড়ে মর্তলোকে (পৃথিবী) আসবেন। আর দেবী স্বর্গালোকে বিদায় নেবেন ঘোটক (ঘোড়ায়) চড়ে।
বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের হিসাব অনুযায়ী, এবার সারাদেশে ২৯ হাজার ৩৯৫টি স্থায়ী, অস্থায়ী মণ্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। যা গত বছরের তুলনায় ৩২৪টি বেশি। আর রাজধানী ঢাকায় পূজা অনুষ্ঠিত হবে ২২৯টি মণ্ডপে। টাঙ্গাইলে ১০৫০টি মণ্ডপে অনুষ্ঠিত হবে শারদীয় দুর্গোৎসব।
এদিকে, শারদীয় দুর্গোৎসবকে ঘিরে মন্দিরে মন্দিরে চলছে প্রতিমা সাজ-সজ্জার কাজ। উৎসব সফলভাবে সম্পন্ন করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর পক্ষ থেকে সকল প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। প্রতিটি মণ্ডপে থাকবে পুলিশ ও আনসার সদস্য। টহলে থাকবে র‌্যাব। থাকবে ভ্রাম্যমান আদালতের একাধিক টিম।
দুর্গাপূজা উপলক্ষে সারাদেশে চলছে এখন উৎসবের আমেজ। প্রতিমা ও মণ্ডপ ঘিরে সাজ সজ্জা প্রায় সম্পন্ন। সাজানো হয়েছে বাহারি রংয়ের আলোকসজ্জায়। রং-তুলি দিয়ে প্রতিমার গায়ে শেষবারের মতো তুলির আঁচড় দিচ্ছেন নির্মাণ শিল্পীরা। এর পরেই মণ্ডপে মণ্ডপে প্রতিমাকে আসনে বসানো হবে। চলবে পূজার্চনা আর আরাধনা।
আগামীকাল ৭ অক্টোবর সায়ংকালে দেবীর বোধন ও মহাষষ্ঠী পূজা অনুষ্ঠিত হবে। ৮ তারিখ নবপত্রিকা প্রবেশ, সপ্তমী ও মহাসপ্তমী বিহিত পূজা। ৯ তারিখ মহাষ্টমী। কুমারী পূজা, সন্ধিপূজা। ১০ তারিখ মহানবমী পূজা এবং ১১ অক্টোবর দেবীর বিজয়া দশমী অনুষ্ঠিত হবে।
অপরদিকে, পুজোর কাউন্টডাউন শেষ। রাত পোহালেই দেবীর বোধন। আজ বৃহস্পতিবার মহাপঞ্চমী। খড়-কঞ্চি-মাটি-রং কর্মযজ্ঞে দেবী দুর্গার রূপদান সমাপ্ত। শাস্ত্র মেনে ত্রিনয়নী দেবীর চক্ষুদান হবে আজ। চারদিকে এখন শারদীয় দুর্গোত্সবের আনন্দ-শিহরণ। শুরু হচ্ছে বাঙালি হিন্দু সমপ্রদায়ের প্রাণের উত্সব, শারদীয় দুর্গোত্সব। শুক্রবার মহাষষ্ঠী। দশমীতে দুর্গা বিসর্জন। দুর্গতি বিনাশ করার জন্য তার আবির্ভাব, তাই দেবীর নামকরণ ‘দুর্গা’।dristy-pic-9টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক মো. মাহবুব হোসেন সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বৃহৎ এ উৎসবে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আন্তরিক অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তিনি জানান, দুর্গোৎসব সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন করতে জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়েছে।
সরকারি সংবাদ সংস্থা বাসস’রতেথ্যমতে, রাজধানীর ঢাকার বেশ কয়েকটি পূজামণ্ডপ ঘুরে দেখা গেছে, ইতোমধ্যে শারদীয় দুর্গোৎসবের প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ের। ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির মেলাঙ্গনের দুর্গোৎসবকে ঘিরে চলছে ব্যাপক প্রস্তুতি। মন্দিরের সামনের মাঠজুড়ে প্যান্ডেল স্থাপন ও মন্দিরের সাজসজ্জার কাজও চলছে।
প্রতিমার সৌন্দর্য, মণ্ডপের চাকচিক্য নিয়ে বিভিন্ন পূজামণ্ডপের মধ্যে চলছে নীরব প্রতিযোগিতা। প্রতিমা তৈরির পাশাপাশি শুরু হয়েছে চোখ ধাঁধানো পূজামণ্ডপের মঞ্চ তৈরি ও নানা পরিকল্পনার কাজ। মণ্ডপ পরিচ্ছন্ন করার কাজও চলছে। মন্দির প্রাঙ্গণকে দৃষ্টিনন্দন করে তুলতে মন্দিরগুলোতেও চলছে ঘষামাজা ও রঙের কাজ।
বাসস জানায়,ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনারের বিশেষ ক্ষমতা আইনে পূজা চলাকালীন, পটকা, আতশবাজি নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ ছাড়া ছুরি, দাহ্য পদার্থ, ব্যাগ, পোটলা ইত্যাদি নিয়ে পূজামণ্ডপ এলাকায় প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে। আজান ও নামাজের সময় সহনশীল আচরণ প্রত্যাশা করা হয়েছে। মাইক ও লাউডস্পিকার বন্ধ রাখতে অনুরোধ করেছে পুলিশ কর্তৃপক্ষ।
বিজয়া দশমীর দিন কেন্দ্রীয়ভাবে শোভাযাত্রার আয়োজন করা হয়েছে। শোভাযাত্রাটি ঢাকেশ্বরী মন্দির থেকে বের হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে পুলিশ সদর দফতরের সামনে দিয়ে গুলিস্তান হয়ে বুড়িগঙ্গায় গিয়ে বিসর্জন দেওয়া হবে। এই রুট সেদিন হকারমুক্ত রাখা হবে। বিসর্জনস্থলে পর্যাপ্ত লাইটিং, ফায়ার সার্ভিস, ডুবুরি দল থাকবে।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno