আজ- ২০শে নভেম্বর, ২০১৮ ইং, ৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৫ বঙ্গাব্দ মঙ্গলবার  রাত ১০:৪৪

বিবিএ’র ভূমিতে আধিপত্য বিস্তারে দু’পরিবারে উত্তেজনা :: ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

 

বুলবুল মল্লিক:


বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্বপাড়ে টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার বিনোদলুহুরিয়া পয়েণ্টে বাংলাদেশ সেতু কর্তৃপক্ষের (বিবিএ) ভূমিতে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে স্থানীয় দুইটি প্রভাবশালী পরিবারের মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। ফলে সেতু পাড়াপাড় হওয়া অতিরিক্ত মালামাল লোড-আনলোডের কাজ বন্ধ রয়েছে। এতে পাঁচ শতাধিক দিনমজুর বেকার হয়ে পড়েছে।
সরেজমিনে জানাগেছে, শুক্রবার(২৬ অক্টোবর) বিকাল থেকে উভয় পক্ষের লোকজন সংঘবদ্ধ হয়ে বিনোদলুহুরিয়া পয়েণ্টে মহড়া দিচ্ছে। বিবিএ’র ওই ভূমিতে আধিপত্য বিস্তারে স্থানীয় প্রভাবশালী তালুকদার পরিবার ও আকন্দ পরিবার মুখোমুখী অবস্থান নিয়েছে। ঐতিহ্যবাহী তালুকদার পরিবারের পক্ষে নেতৃত্ব দিচ্ছেন গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মতিউল আলম তালুকদার এবং তার ভাই গোহালিয়া বাড়ি ইউপি চেয়ারম্যান ও আ’লীগ নেতা মো. হযরত আলী তালুকদার। অপরদিকে, আকন্দ পরিবারের পক্ষে নেতৃত্ব দিচ্ছেন গোহালিয়াবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি সদস্য আব্দুল হাই আকন্দ ওরফে ছোট আব্দুল হাই। বড় ধরনের সংঘর্ষ এড়াতে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পুলিশ বিবিএ’র ওই ভূমি থেকে উভয়পক্ষকে সরিয়ে দিয়েছে।
পুলিশ সরিয়ে দেয়ার পর থেকে আকন্দ পরিবারের লোকজন বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্ব থানার বিপরীতে মহাসড়কের উত্তর পাশে একটি বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে। অপরদিকে তালুকদার পরিবারের লোকজন কিছুটা দক্ষিণে বিয়ারামারুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বিপরীতে মহাসড়কের দক্ষিণ পাশে অপর একটি বাড়িতে অবস্থান নিয়েছে। উভয়স্থানেই দিনরাত রান্না এবং খাওয়ার ব্যবস্থা করা হয়েছে।
স্থানীয় ক্ষুদে ব্যবসায়ী ও দিনমজুররা জানায়, বঙ্গবন্ধুসেতু পাড়াপাড়ে অধিকপণ্য বোঝাই ট্রাকের পণ্য নামানো(আনলোড) ও লোকাল ট্রাকে উঠানোর(লোড) জন্য সেতুর পূর্ব ও পশ্চিম পাড়ে বিবিএ’র ভূমি ব্যবহার হয়ে থাকে। সেতুর পূর্বপাড়ে কালিহাতী উপজেলার বিনোদলুহুরিয়া পয়েণ্টে স্থানীয় প্রভাবশালী আকন্দ পরিবারের নিয়ন্ত্রণে লোড-আনলোড করা হচ্ছিল। স্থানীয় চরাঞ্চলের দিনমজুররা রড, সিমেন্ট, গম, কয়লাসহ বিভিন্ন পণ্য বোঝাই ট্রাক লোড-আনলোড করে জীবিকা নির্বাহ করতো। শুক্রবার বিকালে বিবিএ’র ওই জায়গা নিজেদের দখলে নেয়ার জন্য স্থানীয় অপর প্রভাবশালী তালুকদার পরিবার হামলা চালায়। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও হাতাহাতির ঘটনাও ঘটে। পরে বঙ্গবন্ধুসেতু পূর্ব থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে উভয়পক্ষকে সরিয়ে দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এরপর শুক্রবার রাতভর, শনিবার ও রোববার দিনরাত উভয় পক্ষের লোকজন ওই এলাকায় অবস্থান নিয়েছে। তারা বিচ্ছিন্নভাবে মহড়াও দিচ্ছে। এ ঘটনায় এলাকায় চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। স্থানীয়রা যেকোন সময় বড় ধরণের সংঘর্ষের আশঙ্কা করছে। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে ওইস্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে ।
এ ঘটনায় আকন্দ পরিবারের নেতা ইউপি সদস্য আব্দুল হাই আকন্দ বলেন, স্থানীয় লোকজন বিবিএ’র ওই জায়গায় দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন ধরনের পণ্য লোড-আনলোড করে দিনাতিপাত করছিল। তালুকদার পরিবারের লোকজন ওই জায়গা জোর করে দখল নিতে চাইলে এলাকার লোকজন বাধা দেয়। এ কারণেই উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।
তালুকদার পরিবারের নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান হযরত আলী তালুকদার বলেন, বিবিএ’র ওই জায়গা দখল করে আব্দুল হাই আকন্দর লোকজন লোড-আনলোডের কাজ করতো। আমাদের কিছু লোক ওই জায়গায় গেলে তাদেরকে কাজ করতে দেয়নি। পরে তাদের মধ্যে বাকবিতন্ডা ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। বিষয়টি মিমাংসার জন্য স্থানীয় এমপি চেষ্টা করছেন বলে জানান তিনি।
এ বিষয়ে বিবিএ’র সহকারী প্রকৌশলী আহসান মাসুদ বাপ্পী বলেন, সেতু পাড়াপাড়ে নির্দিষ্ট ওজনের সীমাবদ্ধতা রয়েছে। সেজন্য সেতু কর্তৃপক্ষের ভূমিতে অতিরিক্ত ওজনের পণ্য বোঝাই ট্রাকগুলো আনলোড করে ওজন সঠিক করা হতো। এতে প্রতিদিন পাঁচ শতাধিক দিনমজুরের প্রয়োজন হতো। ওই জায়গায় আধিপত্য বিস্তার করতে গিয়ে যাতে অপ্রীতিকর ঘটনা না ঘটে সেজন্য উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে ওই স্থানে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মো. মোশাররফ হোসেন বলেন, বিবিএ’র জায়গা দখলকে কেন্দ্র করে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা দেখা দেয়ায় সংর্ঘষ এড়াতে ওই স্থানে সকল ধরণের কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। থানা পুলিশের পাশাপাশি অতিরিক্ত পুলিশও মোতায়েন করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

মন্তব্য করেছে

 
 
 

0 Comments

You can be the first one to leave a comment.

 
 

Leave a Comment

 




 
 

 
 
 

ব্যবস্থাপনা পরিচালক : মু. জোবায়েদ মল্লিক বুলবুল
আশ্রম মার্কেট ২য় তলা, জেলা সদর রোড, বটতলা, টাঙ্গাইল-১৯০০।
ইমেইল: dristytv@gmail.com, info@dristy.tv, editor@dristy.tv
মোবাইল: +৮৮০১৭১৮-০৬৭২৬৩, +৮৮০১৬১০-৭৭৭০৫৩

shopno